বাংলাদেশে এই প্রথম চালু হচ্ছে মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি সেবা - ফিনটেক বাংলা
You are here
Home > ব্যবসা ও বাণিজ্য > বাংলাদেশে এই প্রথম চালু হচ্ছে মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি সেবা

বাংলাদেশে এই প্রথম চালু হচ্ছে মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি সেবা

আগামী ১লা অক্টোবর থেকে দেশে চালু হবে মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি (এমএনপি) সেবা। গ্রাহকের নম্বর অপরিবর্তিত রেখে অপারেটর বদল করাই হল মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি। এই সেবায় গ্রামীণফোন, রবি, বাংলালিংক ও টেলিটকের গ্রাহকেরা একে অন্যের নেটওয়ার্কে গিয়ে তাদের নিজস্ব কলরেট ও ইন্টারনেট প্যাকেজ ব্যবহার করতে পারবেন।

আগ্রহী গ্রাহকরা অপারেটর বদল করতে চাইলে পছন্দের অপারেটরের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে গিয়ে আগের নম্বরের নতুন একটি সিম নিতে হবে। এই সিম পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে চালু হবে। একবার অপারেটর পরিবর্তন করতে গ্রাহকের ১৫৭ টাকা ৫০ পয়সা ব্যয় হবে। তন্মধ্যে এমএনপি সেবার ফি ৫০ টাকা ও তার ওপর ১৫% মূল্য সংযোজন কর ৭.৫ টাকা এবং সিম রিপ্লেসমেন্টের বিপরীতে কর ১০০ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিবার অপারেটর বদলানোর জন্য নতুন সিম নিতে ৫০ টাকা দিতে হবে গ্রাহককে। অন্যদিকে কোন গ্রাহক ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অপারেটর পরিবর্তন করতে চাইলে ২৫৮ টাকা ব্যয় করতে হবে। গ্রাহক এক অপারেটর থেকে অন্য অপারেটরে যেতে চাইলে অন্তত ৯০ দিন বর্তমান অপারেটরে থাকবে হবে।

২০১৭ সালের নভেম্বরে কনসোর্টিয়াম ইনফোজিলিয়ন মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি সেবার লাইসেন্স পেলেও চলতি বছরের জুলাই মাসে এমএনপি নীতিমালার চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়। এখানে বিটিআরসিও ইনফোজিলিয়নের সাথে একটি নির্দিষ্ট অংশ পাবে।

ইনফোজিলিয়ন জানিয়েছে, “৩০ সেপ্টেম্বর, রোববার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে এ সেবা চালু হবে। তবে এমএনপি সেবার জন্য বিটিআরসি যে শর্ত ও ফি ধার্য করে করছে তাতে এটি গ্রাহকের কাছে খুব আকর্ষণীয় হওয়ার সম্ভাবনা কম।”

ইতিমধ্যে অনেকেই এ নিয়ে নেতিবাচক কথা বলেছে। এমনকি মোবাইল অপারেটর রবিও এ নিয়ে খুব একটা আশাবাদী নয় বলে জানা গেছে। অন্যদিকে টেলিযোগাযোগ গবেষণা প্রতিষ্ঠান লার্ন এশিয়ার জ্যেষ্ঠ গবেষক আবু সাইদ খান বলেন, “মূলত কম দাম অথবা ভালো মানের সেবার জন্য মানুষ অপারেটর বদলায়। অথচ ভালো মানের সেবা নিশ্চিত করতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও অপারেটর কারোরই নূন্যতম পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছে না। তাই মএনপির ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হওয়ার সম্ভাবনাও কম।”

সবকিছুর পরেও নতুন এই মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি সেবা কতদিন টিকে থাকতে পারে এটা দেখা এখন কেবল সময়ের ব্যাপার।

মন্তব্য করুন

Top